মোবাইল অ্যাপে মেশিন লার্নিং

স্বাভাবিকভাবেই পাঠক হয়তো ভাবছেন- মোবাইল অ্যাপে মেশিন লার্নিং? হ্যাঁ, ঠিকই ভাবছেন, এখন আর কোনো কিছুই অসম্ভব নয়। তথ্যপ্রযুক্তির এই সময়ে আমাদের চারপাশ ঘিরে রয়েছে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বা আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলেজেন্স। আর এই আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলেজেন্সর অন্যতম শাখা মেশিন লার্নিং।

যারা ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে পড়াশোনা করেছেন বা করছেন সবাই কম বেশি এই শব্দটির সঙ্গে পরিচিত। সহজ কথায় বলতে গেলে মানুষের বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে মেশিনকে শেখানো।

বর্তমান সময়ে সবচেয়ে বহুল ব্যবহৃত শব্দ মেশিন লার্নিং। হাতের স্মার্টওয়াচ থেকে শুরু করে ঘরের স্মার্টটিভি, সবকিছুতেই পাওয়া যায় মেশিন লার্নিং এর নিত্যনতুন প্রযুক্তির ছোঁয়া। প্রযুক্তিনির্ভর এই পৃথিবীতে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন আবিষ্কারে ব্যবহৃত হচ্ছে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বা আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলেজেন্স।

বিগত কয়েক বছর ধরে সারাবিশ্বে আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলেজেন্স এর অন্যতম শাখা মেশিন লার্নিং তার ডালপালা ছড়িয়েছে বিস্ময়করভাবে। সবাই যেখানে প্রতিনিয়ত মেশিন লার্নিংয়ের সুফল ভোগ করছে, সেইখানে মেশিন লার্নিংয়ের এলগরিদমগুলোকে কীভাবে আরও সহজ করে, সর্বত্র ব্যাবহারকারীর উপযোগী করে তৈরি করা যায় তা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের নামিদামি টেক জায়ান্টরা (গুগল, অ্যামাজন, অ্যাপল, স্যামসাং, হুয়াওয়ে এবং আর অনেকে)।