সোনাতলায় ব্যবস্যা প্রতিষ্ঠানে হামলা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় ইউপি সদস্যের নামে আদালতে মামলা, গ্রেফতার-১

স্টাফ রিপোর্টারঃ বগুড়ার সোনাতলায় গত ২২’শে আগষ্ঠ শনিবার সন্ধায় উপজেলার কর্পুর বাজারে খান মার্কেটে ‘মুক্তার ট্রেডার্স ওয়াল্টন শো-রুম’ নামক ব্যবস্যা প্রতিষ্ঠানে হামলা, টাকা ছিনতাই ও অগ্নি সংযোগের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় প্রতিষ্ঠানের মালিক উপজেলার বালুয়া ইউনিয়নের ধর্মকুল গ্রামের মোঃ মোখলেছুর রহমানের ছেলে মোঃ মোক্তাদীর ৫জনকে আসামি করে জরিত আরো অজ্ঞাত ১৫/২০ জনের নামে বগুড়া আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন (মামলা নং-০২/১৪১)। উক্ত মামলার আসামিরা হলো, উপজেলার বালুয়া ইউনিয়নের ধর্মকুল গ্রামের মোঃ আজিজার রহমান ফুলমিয়ার ছেলে ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ আসাদুজ্জামান সোহেল, তার ছোটভাই মোঃ আতাউর গনি স্বপন, গাবতলী উপজেলার নারুয়ামেলা এলাকার সাদেক আলীর ছেলে আলিফ, একই এলাকার জহুরুর ইসলামের ছেলে সিহাব ও গাবতলী লাঠিগঞ্জ এলাকার মোঃ সৌরভ পিতা অজ্ঞাত। এদিকে তদন্ত সাপেক্ষে আসামিদের গ্রেফতারের আদেশ জারি করে বিজ্ঞ আদালত মামলাটি সোনাতলা থানা ও গাবতলী থানায় হস্তান্তর করে। সেইমুলে ১৫’ই সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সন্ধায় সোনাতলা থানা ও গাবতলী থানা পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে গাবতলী লাঠিগঞ্জ এলাকা থেকে মামলার ৪ নং আসামি সিহাবকে আটক করে। বর্তমানে আটককৃত আসামি সিহাব সোনাতলা থানা হেফাজতে রয়েছে বলে জানাযায়।

উল্লেখ্য, উপজেলার বালুয়া ইউনিয়নের কর্পুর বাজারে খান মার্কেটে ‘মুক্তার ট্রেডার্স ওয়াল্টন শো-রুম’ এর একটি ব্যবস্যা প্রতিষ্ঠান রয়েছে গোলাম মোক্তাদীর রহমানের। ব্যবস্যার পাশাপাশি তিনি আগামী ২০২১ সালে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ৮ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য পদে নির্বাচনে অংশগ্রহনের লক্ষে ঐ ওয়ার্ডের বিভিন্ন ধরনের উন্নয়ন মূলক কাজ করে যাচ্ছেন। এতেকরে ঐ ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় তার বেশ জনপ্রিয়তা তৈরি হয়েছে। আর সেই জনপ্রিয়তা দেখে ইর্শ্বান্বিত হয়ে শনিবার সন্ধায় বর্তমান ইউপি সদস্য ধর্মকুল গ্রামের মোঃ আজিজার রহমান ফুল মিয়ার ছেলে আশাদুজ্জামান সোহেলের নেতৃত্বে তার ভাই আতাউর গনি স্বপন, গাবতলী নারুয়ামেলা এলাকার আলিফ, সিহাব ও লাঠিগঞ্জ এলাকার সৌরভ সহ অজ্ঞাত ১৫/২০ জনের একটি ভারাটিয়া সন্ত্রসী দল হাতে লাঠিশোটা ও দেশীয় অস্ত্রপাতি নিয়ে ঐ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে এসে হামলা চালায় এবং প্রান নাশের হুমকী-ধামকী দেয়। এসময় তিনি তার জিবন রক্ষার্থে তার ব্যবস্যা প্রতিষ্ঠানে থাকা ৫লক্ষ টাকা একটি ব্যাগে করে নিয়ে সেখান থেকে নিরাপদ স্থানে যাওয়ার চেষ্টা করলে আতাউর গনি স্বপন ও তার সঙ্গীয়রা তাকে পথরোধ করে তার কাছে থাকা ঐ টাকার ব্যাগটি ছিনিয়ে নেয় এবং ঐ মার্কেটের সামনে রাখা তার ব্যবহৃত মোটর সাইকেলে অগ্নিসংযোগ করে। এসময় স্থানীয়রা তাদের ধাওয়া করলে তারা কৌশলে দৌরে পালিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। অপরদিকে গত ৫’ই আগষ্ট আসাদুজ্জামান সোহেলের কথামতো তার ছোট ভাই আতাউর গনি স্বপন কর্পুর বাজারে একটি চায়ের দোকানে তাকে ডেকে নিয়ে আগামি নির্বাচনে অংশগ্রগন না করতে নিষেধাঙ্গা দেয় এবং তা না হলে তার ব্যবস্যা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেবে বলে হুমকী ধামকী প্রদান সহ তার নিকট হতে ২ লক্ষ টাকার চাদা দাবি করে। সেসময় গোলাম মোক্তাদীর তার কথায় রাজি না হওয়ায় তারা পুর্ব পরিকল্পিত ভাবে ২২’শে আগষ্ঠ শনিবার সন্ধায় এ অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটায়। উক্ত ঘটনার স্বিকার হলে তিনি মৃত্যুভয়ে জিবন রক্ষার্থে প্রশাসনিক সহযোগিতা চেয়ে তাৎক্ষনিক ৯৯৯ নাম্বারে কল করলে সোনাতলা থানার অফিসার ইনচার্জ সহ সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

বিঃদ্রঃ উল্ল্যেখিত তথ্যগুলো গোলাম মোক্তাদীর তার ব্যবস্যা প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তায় ব্যবহৃত সিসি ক্যামেরায় ধারনকৃত ভিডিও ফ্রুটেজ থেকে সনাক্ত করনের মাধ্যমে এর সঠিকতা নিশ্চিত করেন।